ভেন্টিলেশন একটি মারাত্বক কষ্টদায়ক চিকিৎসা পদ্ধতিঃ

105

কোভিড-১৯ এর ভেন্টিলেশন মানে একটি নল, যা আপনার গলা দিয়ে নামানো হয় আর মরা বা বাঁচা পর্যন্ত রেখে দেওয়া হয়।
রোগীর কথা বলা, খাওয়া বা স্বাভাবিক কিছুই করতে পারে না- এই যন্ত্রই তাঁদের বাঁচিয়ে রাখে।
আর এতে যে ব্যথা বা অস্বস্তির সৃষ্টি হয়, তা থেকে বাঁচার জন্য মেডিকেল এক্সপার্টরা ব্যথানাশক ও চেতনানাশক দিয়ে রাখেন যেন রোগী নলটা সহ্য করতে পারেন।
এভাবে চিকিৎসার ২০ দিন পর একজন কমবয়সের রোগী তার ওজনের ৪০ ভাগ হারায়, মুখে আর শ্বাসনালীতে ঘা হয়ে যায় এবং কোন কোন ক্ষেত্রে ফুসফুস বা হার্টের সমস্যাও দেখা দেয়।
এই কারণেই বৃদ্ধ কিংবা দুর্বল স্বাস্থ্যের রোগীরা এই চিকিৎসা নিতে পারে না, দ্রুতই মৃত্যুবরণ করেন।
তরল খাবারের জন্য নাক দিয়ে বা চামড়া ছিদ্র করে যেভাবেই হোক রোগীর পাকস্থলীতে নল দেওয়া হয়, তরল মল ধরার জন্য আরও একটা ব্যাগ লাগানো হয়, প্রস্রাব ধরার জন্য একটা আর স্যালাইনের জন্য শিরাপথেও আরও একটা নল দিতে হয়।
দুই ঘন্টা পরপর একজন নার্স বা স্বাস্থ্য সহকারী আপনার হাত পা নাড়াচাড়া করিয়ে দেয় আর আপনি পড়ে থাকেন একটা তোশকের ওপরে, যার ভিতর দিয়ে বরফ ঠান্ডা তরল আপনার প্রতি মুহুূর্তের বেড়ে যাওয়া তাপমাত্রা স্বাভাবিক রাখার চেষ্টা করে।
এসময়ে আপনার আপনজনেরা আপনার কাছে একদমই আসতে পারেন না।
ভাবুন একটি ঘরে একা আপনি আর আপনার যন্ত্র।

আর কেউ কেউ বলে, মাস্ক পরে থাকাটা নাকি খুবই অস্বস্তিকর।