খুলনার রেকর্ড গড়া জয়

স্পোর্টস: শেষ জুটির পথচলা যখন শুরু, জয়ের জন্য খুলনার তখনও প্রয়োজন ১৬ রান। এরপর প্রতিটি পদক্ষেপই জাগাল রোমাঞ্চ। ছড়াল উত্তেজনা। মইনুল হোসেন ও আবদুল হালিম পথটুকু পাড়ি দিলেন দারুণ দৃঢ়তায়। রুদ্ধশ্বাস লড়াই শেষে খুলনা গড়ল দেশের ক্রিকেটে নতুন নজির। জাতীয় লিগের রোমাঞ্চে ঠাসা ম্যাচে মিরপুরে রংপুর বিভাগকে ১ উকেটে হারিয়েছে খুলনা বিভাগ। এই প্রথম ১ উইকেটের জয় দেখল বাংলাদেশের ঘরোয়া প্রথম শ্রেণির ক্রিকেট। এর আগে ২ উইকেটের জয় ছিল চারটি। দুটি ছিল ঢাকা বিভাগের, খুলনা ও বরিশালের একটি করে। খুলনার শেষের নায়ক মইনুল। আটে নামা ব্যাটসম্যান অপরাজিত ছিলেন ১৬ রানে। ম্যাচ জেতানো শেষ জুটিতে বড় কৃতিত্ব আছে শেষ ব্যাটসম্যান হালিমেরও। নিজের প্রথম ১৯ বলে রান করতে না পারলেও উইকেট আগলে রেখে তিনি সঙ্গ দিয়েছেন মইনুলকে। পরে দলকে জয় এনে দেওয়া দুটি রান এসেছে হালিমের ব্যাট থেকেই। শেষ জুটির আগে অবশ্য একটা পর্যায়ে সহজ জয়ের পথে ছিল খুলনা। মঙ্গলবার ৫ উইকেটে ১৩০ রান নিয়ে তারা শুরু করছিল শেষ দিন। জিয়াউর রহমান ও মেহেদি হাসানের জুটিতে রান তাড়া এগোচ্ছিল নির্বিঘেœই। ৫৬ রান করে মেহেদির বিদায়ে ভাঙে ১০৯ রানের জুটি। এরপরই নাটকীয়ভাবে ম্যাচে ফেরে রংপুর। আগের দিন চার উইকেট নেওয়া সোহরাওয়ার্দী শুভ পঞ্চম শিকার ধরেন মেহেদিকে ফিরিয়ে। অভিজ্ঞ বাঁহাতি স্পিনার বিদায় করে দেন জিয়াউরকেও। ৩টি করে চার ও ছক্কায় জিয়াউর করেন ৫৩। মাহমুদুল হাসানের অফ স্পিনে এরপর টানা দুই বলে আউট হয়ে যান অধিনায়ক আবদুর রাজ্জাক ও রুবেল হোসেন। ১০ রানের মধ্যে চার উইকেট হারিয়ে খুলনা চলে যায় হারের দুয়ারে। সেখান থেকেই দলকে ফিরিয়ে জয়ের ঠিকানায় নিয়ে যান মইনুল ও হালিম। শেষ জুটি উইকেটে ছিল ৪৭ বল। এই জুটির কাছে ব্যর্থ হয় রংপুরের সব প্রচেষ্টা। ৬ উইকেট নেওয়া সোহরাওয়ার্দীও পারেননি জুটিতে ভাঙন ধরাতে। বরং তার বলেই মইনুলের একটি বাউন্ডারিতে জয়ের পথে এগোয় খুলনা। হালিমের করা জয়সূচক দুটি রানও এসেছে তার বলেই। শেষের নায়ক এই দুজন হলেও ম্যাচের নায়ক আছে আরও। ৬০০ উইকেট ছোঁয়ার ম্যাচে আবদুর রাজ্জাক নিয়েছেন ১২ উইকেট। তবে ম্যাচ সেরার লড়াইয়ে অলরাউন্ডার পারফরম্যান্সে সবাইকে ছাড়িয়ে গেছেন মেহেদি। প্রথম ইনিংসে আটে নেমে অসাধারণ সেঞ্চুরির পর দ্বিতীয় ইনিংসে মহামূল্য ৫৬, সঙ্গে দুই ইনিংস মিলিয়ে ৫ উইকেট, পুরস্কারটি তারই প্রাপ্য ছিল সবচেয়ে বেশি।
সংক্ষিপ্ত স্কোর:
রংপুর ১ম ইনিংস: ২২৪
খুলনা ১ম ইনিংস: ২৩৩
রংপুর ২য় ইনিংস : ২১১
খুলনা ২য় ইনিংস: ৬২.৪ ওভারে ২০৩/৯ (লক্ষ্য ২০৩, আগের দিন ১৩০/৫ ) (মেহেদি ৫৬, জিয়াউর ৫৩, মইনুল ১৬*, রাজ্জাক ২, রুবেল ০, হালিম ২*; রবিউল ১২-২-৩৪-০, মুকিদুল ১৫-৪-৪৩-১, রিশাদ ১২-১-৫২-০, সোহরাওয়ার্দী ১৮.৪-৩-৫৫-৬, মাহমুদুল ৫-০-১৩-২)।
ফল: খুলনা ১ উইকেটে জয়ী
ম্যান অব দা ম্যাচ: মেহেদি হাসান