অনৈতিক প্রস্তাবে রাজি না হওয়ায় সিরাজদিখানে স্বামী-স্ত্রী’র উপর হামলা: ঘর-বাড়ি ভাংচুর

38

সিরাজদিখান (মুন্সীগঞ্জ) প্রতিনিধি: মুন্সীগঞ্জের সিরাজদিখানে এক গৃহবধু কুপ্রস্তারে রাজি না হওয়ায় গৃহবধুকে সহ এবং  তার স্বামীর উপর হামলা করে মারাত্মক নীলাফুলা জখম করেছে ১৫ থেকে ২০ জনের একদল দুর্বৃত্তরা। এসময় বাড়ি ভাংচুর ও গৃহবধুর শ্লীলতাহানিরও অভিযোগ পাওয়া গেছে। এছাড়া নগদটাকা ও স্বর্ণের চেইন ছিনতাইয়ের অভিযোগেও সিরাজদিখান থানায় একটি মামলা হয়েছে। আহত স্বামী স্ত্রী সিরাজদিখান স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে চিকিৎসা নিয়েছে।
মামলার অভিযোগ থেকে জানা যায়, সিরাজদিখান থানার চান্দেরচর গ্রামের মৃত রমিজ উদ্দিনের পুত্র আব্দুল খালেক (৫৫)-এর স্ত্রী কহিনুর বেগম (৪৫)-কে দীর্ঘ দিন ধরে অনৈতিক কাজের প্রস্তাব দিয়ে আসছিল প্রতিবেশী মো. রাকিব (২২), মো. রিফাদ (২০) ও মো. আকবর (২৫)। কিন্তু তাদের প্রস্তাবে রাজি না হওয়ায় বিভিন্ন প্রকার ভয়ভীতি ও খুন জখমের হুমকি দিয়ে আসছিল তারা। এরই জের ধরে গতকাল বুধবার সন্ধ্যা ৭টার দিকে মো. আলী হোসেনর দুই পুত্র মো. শরীফ (২৫) ও মো. সজিব (২০), মো. মজিদ মিয়ার দুই পুত্র মো. রাকিব (২২), ও মো. রিফাদ (২০), মোহাম্মদ হোসেনের পুত্র মো. আকবর (২৫) এবং মো. জালাল উদ্দিনের পুত্র মো. সমশের আলী (৪০)সহ অজ্ঞাত নামা ৩/৪ জন হাতে দা, ছোরা, লোহার রড, বাঁশের লাঠি, কাঠের ডাসা, রশি ইত্যাদি নিয়ে বে-আইনী জনতাবদ্ধেভাবে সজ্জিত হয়ে অনধিকার ভাবে খালেকের বসত বাড়ীতে প্রবেশ করে তাকে তার বসত ঘরের দক্ষিন পাশে পেয়ে বিবাদী মো. আকবরের হুকুমে ৩নং বিবাদীর মো. রাকিবের হাতে থাকা রশি দিয়ে হত্যার উদ্দেশ্যে তার গলায় পেচ মেরে শ্বাসরোধ করার চেষ্টা করে এবং সকল বিবাদীগন লোহার রড, বাঁশের লাঠি, কাঠের ডাসা, রশি দিয়ে তাকে এলোপাথারীভাবে মুখ, ঠোট সহ শরীরের বিভিন্ন স্থানে পিটিয়ে ও কিল, ঘুষি, লাথি মেরে নীলা ফুলা জখমসহ কাটা রক্তাক্ত জখম করে।

তার ডাক চিৎকার শুনে তার স্ত্রী কোহিনুর বেগম (৪৫) এগিয়ে আসলে বিবাদীগন তার স্ত্রীকে এলোপাথারী ভাবে চর থাপ্পর, কিল, ঘুষি, লাথি মেরে তার স্ত্রীর শরীরের বিভিন্ন স্থানে নীলা ফুলা জখম করে। এ সময় খালেকের স্ত্রীর গলায় থাকা এক ভরি ওজনের একটি স্বর্নের চেইন (যার মূল্য আনুমানিক মূল্য ৬২ হাজার টাকা) ১ নং বিবাদী মো. শরীফ নিয়ে যায়। ৪নং ও ০৫নং বিবাদী মো. রিফাদ (২০) ও মো. আকবর (২৫) তার স্ত্রীকে টানা হেচরা করে তার বসত বাড়ীর দক্ষিন পাশের রাস্তায় নিয়ে তার স্ত্রীর পরিহিত থ্রি-পিচ টেনে ছিড়ে শ্লীলতা হানি ঘটায়। এছাড়া মামলার ১, ২ ও ৬নং বিবাদীরা তার বসত টিনের ঘরের ভিতরে প্রবেশ করে বসত ঘরের ভিতরে থাকা একটি স্ট্রীলের আলমিরা, কাঠের সুচে, টিনের বেড়া, দরজা ও বিভিন্ন আসবাবপত্র ভাংচুর করে অনুমান ৫৫ হাজার টাকার ক্ষতিসাধন করে। ১নং বিবাদী তার আলমিরার ড্রয়ার ভেঙ্গে নগদ ১৫ হাজার টাকা ও ১২ আনা ওজনের একটি স্বর্নের চেইন যার মূল্য অনুমান ৪০ হাজার টাকা নিয়ে যায়।

এসময় তাদের ডাক চিৎকার শুনে আশপাশের লোকজন এগিয়ে আসলে বিবাদীগন তাদেরকে উল্লেখিত ঘটনা কাউকে না বলার জন্য বিভিন্ন প্রকার ভয়ভীতি সহ খুন করার হুমকি প্রদান করে চলে যায়। পরবর্তীতে খালেক ও তার স্ত্রী কহিনুর বেগমকে স্থানীয় লোকজন উদ্ধার করে উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে নিয়ে চিকিৎসা প্রদান করে।
এ ব্যাপরে সিরাজদিখান থানর ওসি মো. ফরিদ উদ্দিন জানিয়েছেন, অভিযোগ পেয়েছি। তদন্ত পূর্বক ব্যবস্থা নেয়া হবে।